fbpx

১০০% ফ্রীতে ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম শুরু করুন

blogger bangla tutorial

বর্তমান সময়ে অফলাইনের পাশাপাশি অনলাইন থেকেও মানুষ ইনকাম করছে। কিন্তু যারা নতুন অবস্থায় অনলাইন থেকে ইনকাম করার চিন্তা করে তখনই তাদের মাথায় ইনভেস্টের একটা চিন্তা চলে আসে। অনেকেই হতাশায় আর সামনে দিকে আগাতে চায় না ইনভেস্টমেন্ট লাগবে এই ভয়ে। কিন্তু আপনি জেনে খুশি হবেন যে, অনলাইন থেকে কিন্তু সম্পূর্ণ ফ্রীতে কোন ইনভেস্ট করা ছাড়াই ইনকাম করার অনেক মাধ্যম রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যেম হল ব্লগসাইট থেকে ইনকাম। এই ক্ষেত্রে আপনার জানা লাগবে কিভাবে সম্পূর্ণ ফ্রীতে নিজের জন্য একটি ব্লগ সাইট বানাবেন, আর কিভাবে সাইট থেকে ইনকাম স্টার্ট করার জন্য সেটিকে সাজাবেন।

সম্পূর্ণ ফ্রীতে সাইট তৈরি করে ইনকাম শুরু করার এই মিনি কোর্সে আমরা মূলত আপনাকে Blogger দিয়ে কিভাবে সাইট তৈরি করবেন, কিভাবে ব্লগ পোস্ট করবেন, কিভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এবং Adsense থেকে ইনকাম করবেন তার সব কিছুই শিখাব। আশা করছি ফ্রী এই কোর্সটি কমপ্লিট করার মাধ্যমে আপনারা অনলাইন থেকে ইনকামের যাত্রাটা খুব ভালোভাবে শুরু করতে পারবেন। আর তাহলেই আমাদের এই কষ্ট সার্থক হবে।

ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইন থেকে ইনকাম (১০০% ফ্রী মেথড)

১) ব্লগার ড্যাশবোর্ড ওভারভিউ

Blogger দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে কোন প্রোগ্রামিং জানা লাগবে না, কিন্তু এর ড্যাশবোর্ড সম্পর্কে কিন্তু আপনার অবশ্যই ভাল ধারণা থাকতে হবে। কারন কিভাবে ওয়েবসাইট সাজাবেন তার প্রতিটা টুলস বা অপশন ড্যাশবোর্ডে দেয়া আছে। ব্লগার ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে ওয়েবসাইটের নাম, URL সেট করা, থিম ইন্সটল করা সহ ব্লগার ওয়েবসাইটের ড্যাশবোর্ড সম্পর্কে শিখতে পারবেন এই ভিডিওতে।

২) লগো ডিজাইন এবং থিম কাস্টমাইজেশন

ওয়েবসাইটের জন্য আপনার ইন্সটল করা থিম এর কালার কিভাবে পরিবর্তন করবেন, কি ভাবে ওয়েবসাইটের ব্যাকগ্রাউন্ড কালার সিলেক্ট করে অ্যাড করবেন সেই সম্পর্কে এই ভিডিওতে শিখানো হয়েছে। এছাড়াও ওয়েবসাইটের থিমের কালারের সাথে মিল রেখে লোগো ডিজাইন ও লোগো সেট করা এবং ওয়েবসাইটের ভিতর কি ভাবে পেইজ তৈরি করবেন তার সব কিছু শিখনো হয়েছে। ফেবিকন কি? ওয়েবসাইটের ফেবিকন কি ভাবে কাস্টমাইজ করে নিজের ব্র্যান্ড এর লোগো অ্যাড করবেন সে সম্পর্কে এই ভিডিওতে শিখতে পারবেন।

৩) সাইটবার ও ফুটার কাস্টমাইজেশন

ওয়েবসাইটের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল সাইটবার এবং ফুটার। বিভিন্ন ওয়েবসাইট ভিজিট করলে ওয়েবসাইটের সাইটে যে অপশন বা বার গুলা দেখা যায় সেটা সাইটবার। আর ফুটার হল কন্টেন্টের একটি সেট যা সাধারণত একটি ওয়েব পৃষ্ঠার নীচে অবস্থিত। এটি সাধারণত সম্পর্কে তথ্য ধারণ করে যেমন এটি কে লিখেছেন, কখন এটি প্রকাশিত হয়েছিল এবং একটি কপিরাইট বিজ্ঞপ্তি থাকে ৷ আপনি আপনার সাইটে প্রদর্শন করতে চান এমন অন্য কোনো তথ্যও ফুটারে থাকতে পারে। ওয়েবসাইট এর ইনফরমেশন গুলা মূলত ফুটারে থাকে। ওয়েবসাইটে সাইটবার ও ফুটার কাস্টমাইজেশন করে কি ভাবে নিজের মত করে সাজাবেন সেই সম্পর্কে শিখতে পারবেন এই ভিডিওতে।

৪) পেইজ সাজানো ও সঠিকভাবে ব্লগ পোস্ট

একটি ওয়েবসাইটে কিন্তু বিভিন্ন রকমের পেইজ থাকে। যেমন About, Contact us এই রকম আরও পেইজ। এই পেজগুলি কিভাবে কাস্টমাইজ করে নিজের মত করে সাজাবেন এবং আপনার ইনফরমেশন অ্যাড করবেন সেই বিষয়ে এই ভিডিওতে শিখনো হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে কিভাবে সঠিক উপায়ে ওয়েবসাইটে আপনার লেখা ব্লগ পাবলিশ করবেন সেই বিষয়ে শিখতে পারবেন।

৫) ওয়েবসাইটে ডোমেইন কানেক্ট

ডোমেইন হচ্ছে ওয়েবসাইটের এ্যাড্রেস বা ঠিকানা যেটি মানুষ ব্রাউজারে টাইপ করে ওয়েব সাইট ভিজিট করতে পারবে। উদাহরণ হিসেবে আমরা বলতে পারি msbacademy.com এটি একটি ডোমেইন। প্রতিটা ওয়েব সাইটের আইপি অ্যাড্রেস থাকে, সেই আইপি অ্যাড্রেস মনে রাখা সহজ হয় না। আইপি অ্যাড্রেসের পরিবর্তে ডোমেইন নাম ব্যাবহার করা হয়। কিভাবে ডোমেইন কিনবেন? এবং ওয়েবসাইটে অ্যাড করবেন সে বিষয়ে বিস্তারিত শিখানো হয়েছে এই ভিডিওতে।

৬) ওয়েবসাইটে চ্যাট ফিচার অ্যাড করা

আপনার ওয়েবসাইটে যারা ভিজিট করতে আসবে তার কিন্তু আপনার সাথে যোগাযোগ করতে চাইবে। ভিজিটররা যেন সহজে আপনার সাথে ম্যাসেজে যোগাযোগ করতে পারে তার জন্য ওয়েবসাইটে Messenger & WhatsApp Live Chat অপশন কিভাবে অ্যাড করবেন সেই বিষয়ে এই ভিডিওতে শিখনো হয়েছে।

৭) সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন SEO

ডিজিটাল এই যুগে সবচেয়ে গুরুত্বপূর বিষয় হল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন যাকে সংক্ষেপে SEO বলা হয়। হাজার হাজার লিঙ্ক, ওয়েবসাইট বা পণ্যের মধ্যে ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিনে যেন আপনার টাই সবার আগে মানুষের সামনের চলে আসে এটি মূলত SEO এর কাজ। আপনার লেখা ব্লগ আর্টিকেল সবার কাছে পৌঁছে দেয়ার জন্য সবচেয়ে বেশি কার্যকারী দিক হল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। ওয়েবসাইটে কি ভাবে SEO ফ্রেন্ডলি আর্টিকেল লিখবেন এই ভিডিওতে এই বিষয়ে সব কিছু শিখনো হয়েছে। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) কি? কেন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করা হয়? এই বিষয়ে আরও বিস্তারিতভাবে জানতে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়ে নিতে পারেন।

৮) অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এবং গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম

ইনভেস্ট বা পুজি ছাড়া বর্তমান সময়ে ঘরে বসে কেউ যদি ইনকাম করতে চায়, তার জন্য গুগল এডসেন্স এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল বিশাল ২টি সুযোগ। আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ব্লগ আর্টিকেল লিখে এবং আরও বিভিন্ন উপায়ে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনার ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে পারবেন। সহজ কথায় যদি বলি, ধরুন আপনি ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে একটি ব্লগ আর্টিকেল লিখেছেন এবং সেখানে এম এসবি একাডেমীর অল ইন ওয়ান ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্সের অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক দিয়ে দিলেন এখন কেউ যদি আপনার আর্টিকেল পড়ে সেই লিঙ্কে ক্লিক করে কোর্স কিনে তাহলে আপনি একটা কমিশন পাবেন। অনলাইনে কাজটি আরো বেশি সহজ। যত বেশি মানুষ আপনার সেই লিঙ্কে ক্লিক করে কোর্স কিনবে আপনি তত বেশি কমিশন পাবেন।

MSB Academy অ্যাফিলিয়েট মার্কেটারদের ২০% করে কমিশন দিয়ে থাকে। অ্যাফিলিয়েটদের প্রোমোট করা কোর্সগুলো যখন শিক্ষার্থীরা ক্রয় করেন, তখন প্রতিটি কোর্সের বিক্রয়মূল্য থেকে ২০% কমিশন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার পেয়ে যায়! অর্থাৎ একজন শিক্ষার্থী কোনো অ্যাফিলিয়েটের মাধ্যমে ৩০০০ টাকার একটি কোর্স কিনলে সেই অ্যাফিলিয়েট পাবেন ৬০০ টাকা! আপনি একটি প্রোডাক্ট বিক্রি করেও প্রতিদিন হাজার টাকার উপরে আয় করতে পারবেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন। আর আপনি যদি অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে কোন ইনভেস্টমেন্ট ছাড়াই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান, তাহলে জয়েন করতে পারেন আমাদের বেস্টসেলিং Amazon Affiliate Marketing with YouTube কোর্সটিতে। এই কোর্সে জয়েন করার ২-৩ মাস পর থেকে অনেক স্টুডেন্টদেরই প্যাসিভ ইনকাম শুরু হয়ে গেছে!!

৯) ফ্রিতে ওয়েবসাইটে ট্রাফিক আনার কৌশল

ওয়েবসাইটের ভিজিটর হচ্ছে ঘরে আসা মেহমান অথবা বন্ধুর মত। এখন কথা হচ্ছে, বন্ধুত্ব করা বড় কথা, নাকি সেই বন্ধুত্ব রক্ষা করা! কোনটা? ওয়েবসাইটে ভিজিটর নিয়ে আসা গুরুত্বপূর্ণ, নাকি ভিজিটরকে ধরে রাখা গুরুত্বপূর্ণ? আসলে দুইটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ওয়েবসাইটে ট্রাফিক আনার অনেক পেইড মার্কেটিং বা কৌশল রয়েছে যা কিছুটা ব্যয়বহুল। সেই ব্যয়বহুল কাজটি কিভাবে সম্পূর্ণ ফ্রিতে করবেন সেটি শিখনো হয়েছে এই ভিডিওতে।

১০) অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ৫টি বড় ভুল

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার মাধ্যমে অন্য কোন কোম্পানির প্রডাক্ট বা সার্ভিসের প্রমোশন করে আপনি ইনকাম করতে পারবেন। এই ব্যাপারে আশা করি নতুন করে আর বলার কিছু নাই। কিন্তু নতুনদের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, নতুনরা এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে কিছু ভুল করে ফেলে। যার কারণে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে তারা ভালো কোন রেজাল্ট পায় না। আর এই ভিডিওতে তাই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ৫টি ভুলের ব্যাপারে আলোচনা করা হয়েছে। আশাকরি এই ভুলগুলো আপনারা করবেন না অ্যাফিলিয়েট করার ক্ষেত্রে।

আশা করি এই মিনি কোর্সের ভিডিওগুলো দেখার পর আপনি কমপ্লিট একটি ধারণা পেয়েছেন যে, কিভাবে ফ্রিতে ব্লগ ওয়েবসাইট তৈরি করে করতে হয়, ডোমেইন অ্যাড করে কিভাবে ওয়েবসাইটে প্রফেশনাল লুক দেয়া যায় এবং কিভাবে সেই সাইট থেকে ইনকাম করা যায় অ্যাফিলিয়েট অ্যান্ড অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে। আসলে একদম নতুন হিসাবে Blogger দিয়ে আপনি সাইট তৈরি করে ইনকাম করার ক্ষেত্রে এই মেথড ঠিক আছে। কিন্তু What is NEXT? 

আমি বলব আপনার যদি Blogger দিয়ে তৈরি সাইট থেকে ইনকাম আশা শুরু করে তাহলে আপনি নেক্সট স্টেপে WordPress শিখা শুরু করে দিন। কারণ এই ওয়েবের প্রায় ৪৭% এর বেশি সাইট এই WordPress CMS দিয়ে তৈরি। এই ওয়ার্ডপ্রেস এর কাজ আপনি একবার শিখে গেলে যেকোনো ধরনের সাইট আপনি তৈরি করতে পারবেন খুব সহজেই। যদিও এই ক্ষেত্রে Domain, Hosting অ্যান্ড Premium Theme কিনতে আপনার কিছু টাকা খরচ করতে হবে। কিন্তু আপনি এই ব্লগিং লাইনে, বা ওয়েবসাইট তৈরি অ্যান্ড সার্ভিস দেয়ার কাজে সিরিয়াস হয়ে থাকলে ওয়ার্ডপ্লেস দিয়ে সাইট তৈরি করাই আপনার জন্য বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস কাস্টমাইজেশন করে ব্লগ সাইট বানাবেন? এই বিষয়ে ভাল ভাবে জানতে এবং শিখতে আপনি আমাদের ওয়ার্ডপ্রেস কাস্টমাইজেশন কোর্সটিতে জয়েন করতে পারেন। কোর্সটিতে স্টুডেন্টদের কাজের সুবিধার জন্য ১৫০০ ডলার মূল্যের প্রিমিয়াম থিম এবং প্লাগিনের লাইফটাইম লাইসেন্স দেয়া হবে। তাই আপনি অনেক সহজেই নিজের জন্য প্রফেশনাল একটি ব্লগ ওয়েবসাইট নিজেই তৈরি করতে পারবেন। শুধু তাই না, আপনি চাইলে অন্যের ওয়েবসাইট তৈরি করে দিয়েও ইনকাম করতে পারবেন।

Leave a Reply

error: Alert: Content selection is disabled!!