কেন আমাদের সবার ডিজিটাল মার্কেটিং শেখা উচিৎ?

ডিজিটাল মার্কেটিং বলতে, যেকোনো ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডিজিটাল টুলস ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মাধ্যমে যেকোনো পণ্যের বা সেবার বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা করাকে বোঝায়। ইলেকট্রনিক ডিভাইস বা ইন্টারনেট ব্যবহার করে যে সকল মার্কেটিং করা হয় তার সবগুলোই ‘ডিজিটাল মার্কেটিং’ এর অন্তর্ভুক্ত। ডিজিটাল পদ্ধতি প্রয়োগ করে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য সফল করা কিংবা সম্ভাব্য গ্রাহকদের কাছে পণ্যের বা সেবার বিজ্ঞাপন পৌঁছানোর বিদ্যায় হচ্ছে ‘ডিজিটাল মার্কেটিং’।

বর্তমান যুগ ডিজিটাল যুগ। এই ডিজিটাল যুগে মানুষ ঘরে বসে তাদের প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে পছন্দ করে। এক ক্লিক করে মানুষ যেমন তাদের পছন্দের পণ্যটি হাতে পেয়ে যায় ঠিক তেমনি আপনি চাইলে আপনার পণ্য বা সার্ভিসটি ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে খুব সহজে সবার কাছে পৌঁছে দিয়ে পারেন এক ক্লিকের মাধ্যমে। শুধু বাংলাদেশ না, পুরো বিশ্বেই কিন্তু এখন এই ডিজিটাল যুগের জয়জয়কার। কারণ এর সুবিধা যে অনেক!! আর আমাদের সবার মনে একটা প্রশ্ন থাকে ডিজিটাল মার্কেটিং কেন শিখব? এটি শিখলে আমাদের কি ধরনের উপকার হবে? এই প্রশ্ন সবার মনেই কম বেশি কাজ করে। আর তাই আজাকে আমি আপনাদের ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে একটু ধারনা দিব। কারণ, বর্তমানে আপনি অনলাইন অথবা অফলাইন যেখানে বিজনেস করেন না কেন আপনাকে মার্কেটিং সম্পর্কে খুব ভাল একটা ধারনা রাখতে হবে।

আপনার পণ্য বা সেবা যত ভাল হোক না কেন, সেটা যদি আপনি মানুষের কাছে পৌঁছাতে না পারেন সেটার কোন মূল্য থাকবে না। আপনার পন্যের মান সম্পর্কে মানুষকে জানাতে আপনাকে মার্কেটিং করতেই হবে। একটা সময় আমরা মার্কেটিং বলতে Tvc এবং রাস্তার পাশে বিলবোর্ড কে বুঝে থাকতাম। সময়ের সাথে সাথে এখন তা ডিজিটাল উপায়ে খুব অল্প সময়ে সাড়া দুনিয়ার মানুষকে আপনি আপনার সার্ভিস সম্পর্কে জানতে পারছেন। আমাদের দেশে এখনও তুলনামূলক ভাবে অন্য দেশের চেয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা কম৷ আসলে তাদের কোন ধারনা নেই যে ডিজিটাল মার্কেটিং তাদের জন্য কতটুকু সুফল বয়ে আনতে পারে৷ সুতরাং চলুন এবার ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা এবং প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

১) অল্প খরচে মার্কেটিং করা যায়ঃ কোন পণ্যের মার্কেটিং করতে যদি আপনাকে দোকানে দোকানে যেতে হয় স্বাভাবিক ভাবেই সেখানে খরচটা বেশি পড়বে৷ পক্ষান্তরে ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে ঘরে বসে নাম মাত্র খরচে লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে মার্কেটিং করতে পারেন৷ যেখানে আপনার সময় এবং টাকা দুইটাই সেইফ হবে।

২) অল্প সময়ে অধিক লোকের কাছে মার্কেটিংঃ ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে নিমিষেই লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে মার্কেটিং করা সম্ভব৷ বর্তমান সময়ে বিশ্বের প্রায় অধিকাংশ মানুষ সোশ্যাল মিডিয়াতে নিয়মত এ্যাক্টিভ থাকে। আপনার ব্যবসায়িক পণ্যের প্রচারের জন্য এর চাইতে ভাল জায়গা আর কি হতে পারে। যেখানে আপনি এক ক্লিকের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে আপনার সেবা বা পণ্য পৌঁছে দিতে পারবেন।

৩) খুব সহজেই ট্র্যাক করা যায়ঃ আপনি যদি পোষ্টার বা বিলবোর্ডের মাধ্যমে মার্কেটিং করেন তাহলে কিন্তু বুঝতে পারবেন না দিনে কতজন আপনার পোষ্টার বা বিলবোর্ড দেখেছে৷ কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এগুলো খুব সহজেই জানা যায়৷ কাস্টমার কোন ধরনের পণ্য খুজছে, কি পণ্য খুজছে, কতজন পণ্যটি দেখছে সবকিছু খুব সহজেই বোঝা যায়৷ যার ফলে ব্যবসায় অনেক সুবিধা হয়৷ পণ্য বা সার্ভিস কাস্টমারের কেমন লাগলো সেটাও সহজেই জানতে পারবেন। এবং কাস্টমারের চাহিদা সম্পর্কে আপনার একটা ক্লিয়ার ধারনা হবে।

৪) খুব সহজে কাস্টমারের সাথে সম্পর্ক তৈরি করা যায়ঃ ডিজিটাল মার্কেটিং যেহেতু আপনি ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউব ইত্যাদির মাধ্যমে করবেন সেহেতু এই মাধ্যম গুলো দিয়ে খুব সহজে আপনি অনেক কাস্টমারের সাথে সুসম্পর্ক গড়ে তুলতে পারবেন৷ এবং সেটা খুব অল্প সময়ে৷ যা আপনার ব্যবসার ক্ষেত্রে খুবই উপকারি ভূমিকা পালন করবে।

৫) ঝামেলামুক্ত ইনকামের নিশ্চয়তাঃ ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ যখন ইচ্ছা তখন, যেখানে ইচ্ছা সেখানে একটা ল্যাপটপ আর ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই করা যায়। আর এই সব কাজ রিমোটলি করা যায় বিধায়, আপনি টীম নিয়ে কাজ করলেও রিমোটলি এই সব কাজ চাইলে করতে পারবেন। যা আপনার সময় খরচ ২ টাই বাঁচিয়ে দিবে।

৬) ইনকামের অসীম সম্ভবনাঃ ডিজিটাল মার্কেটিং স্পেসে আপনার ইনকামের সম্ভবনা একদমই লিমিটলেস। কারণ এইখানে কোন জাতি ভেদ নাই। আপনি বাংলাদেশে বসেও পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তের কাজ করতে পারবেন। এমনকি প্রোডাক্ট সেল অ্যান্ড সার্ভিস দেয়াও সম্ভব। ব্লগিং, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এবং মার্কেটিং এর অন্যান্য সেক্টরে কাজ করে বর্তমানে অনেকেই হাজার হাজার ডলার বাংলাদেশে বসেই ইনকাম করছে।  

আসলে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ব্যাপারটা কিন্তু কোন ছোট কোন বিষয় না। এক এক বিজনেসের জন্য এক এক ধরনের মার্কেটিং এর দরকার হয়। আর আপনার যদি সব বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা না থাকে তাহলে কিন্তু আপনি এই লাইনে ভালো করতে পারবেন না। তাই ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে আপনি যাতে সফলভাবে ক্যারিয়ার গড়তে পারেন তাই MSB Academy-তে আমরা পাবলিশ করেছি ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপর একটি কমপ্লিট কোর্সএটা কিন্তু একটা কোর্স না, এটা অনেকগুলো কোর্স এর একটা কম্বিনেশন। কারণ আমাদের টার্গেট আপনাকে একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার বানানো। ব্লগিং, SEO, অ্যাফিলিয়েট, ফেসবুক মার্কেটিং, ইউটিউব, কুপন বিজনেস থেকে শুরু করে ১৪টির বেশি মার্কেটিং সেক্টরে এক্সপার্ট হয়ে যাবেন, যার ফলে আপনি যেকোনো বিজনেসে কিংবা মার্কেটার হিসাবে প্রতি ক্ষেত্রে সফলতার মুখ দেখবেন ইনশাল্লাহ।

আপনার অথবা আপনার ক্লায়েন্টের ব্যবসার প্রচারে আপনি বিভিন্ন মার্কেটিং কৌশল ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু এর মধ্যে থেকে পরবর্তীতে আপনাকে বেছে নিতে হবে যে, কোন কৌশলটি ব্যবহার করলে বেশি লাভবান হবেন। আসলে ডিজিটাল মার্কেটিং একটি গতিশীল মাধ্যম, যার ফলে আপনি সবসময় আপানার কাজের উপর ভিত্তি করে মার্কেটিং কৌশল পরিবর্তন করতে পারবেন খুব সহজে।

Comments

Leave a Reply

error: