সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কীভাবে শিখবেন?

প্রযুক্তির উন্নতির ফলে সব কিছুতে একটা পরিবর্তন এর ছোঁয়া লেগেছে । মানুষের যোগাযোগ এর মাধ্যমে এসে পরিবর্তন। বিজনেস মার্কেটিং লেগেছে প্রযুক্তির পরিবর্তনের ছোঁয়া। যার ফলে মার্কেটিং এ এসে পরিবর্তন। আগের যুগের টিভি বিজ্ঞাপনের পরিবর্তে এখন মানুষ সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং দিকে বেশি গুরুত্ব দিয়ে থাকে। দিন দিন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় ব্র্যান্ডগুলোর কাছে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের চাহিদাও এখন অনেক।

বর্তমানে অনেকই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কে পেশা হিসেবে নিয়েছে। আপনি যদি এই পেশায় আসতে চান তাহলে জেনে নিন কি ভাবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শিখে এই পেশায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি?

সোশ্যাল মিডিয়া বলতে আমরা অনেকেই শুধু ফেসবুকে বুঝে থাকি। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলতে শুধু ফেসবুকে বুঝায় না। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং মানে হচ্ছে ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম, লিংকডইন ইত্যাদি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে প্রোডাক্ট ও সার্ভিসের প্রচারণা চালানো। এ প্রচারণা হতে পারে অর্গানিক কন্টেন্টের মাধ্যমে অথবা বিজ্ঞাপন দিয়ে।

আপনি যদি এখন ফেসবুক বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া তে ঢুকলে কোন পণ্যের বা সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন। একটু ভাল ভাবে চিন্তা করে দেখবেন, বেশিরভাগ বিজ্ঞাপনই আসছে এমন কোনো প্রোডাক্ট বা সার্ভিস থেকে যা আপনার দরকার অথবা আপনি সম্প্রতি কেনার কথা ভাবছেন । এগুলো হল সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের ফল।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং একটা ভাল দিক হল আপনি বিভিন্ন ভাবে আপনার পণ্য বা সার্ভিস এর মার্কেটিং করতে পারবেন। হতে পারে কোন ব্যানার এর মত ছবির মাধ্যমে আবার মোশন গ্রাফিক্স অ্যাড করে ছোট ভিডিও মাধ্যমে মার্কেটিং করা যায়।

আমার আমরা অনেকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলতে শুধু ফেসবুক মার্কেটিং বুঝে থাকি কিন্তু ফেসবুক ছাড়াও আরও অনেক সোশ্যাল মিডিয়া রয়েছে সেখানে মার্কেটিং করা যায়। এক এক সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম এর মার্কেটিং কৌশল এক এক রকম।

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলোর মধ্যে রয়েছে:

  • ফেসবুক (Facebook)
  • ইন্সটাগ্রাম (Instagram)
  • হোয়াটসঅ্যাপ (WhatsApp)
  • স্ন্যাপচ্যাট (Snapchat)
  • টিকটক (TikTok)
  • ইউটিউব (YouTube)
  • টুইটার (Twitter)
  • লিংকডইন (LinkedIn)
  • কোরা (Quora)

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর জন্য সব প্ল্যাটফর্মে আপনার থাকার কোন প্রয়োজন নেই। আপনার যে পণ্য বা সার্ভিস সে টার্গেট অডিয়েন্স অনুযায়ী প্ল্যাটফর্ম নির্বাচন করতে হবে আপনাকে। সঠিক ভাবে যদি এটি নির্বাচন করতে পারেন তাহলে আপনার মার্কেটিং খুব কার্যকারী হবে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কেন গুরুত্বপূর্ণ?

আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এত গুরুত্বপূর্ণ কেন। কি এমন স্পেশাল সুবিধা রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মধ্যে। বর্তমানে সব ধরনের ব্র্যান্ডের এর কাছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং গুরুত্বপূর্ণ হওয়ার কিছু বিশেষ দিক হল:

  • সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোর ইউজারদের একটি বড় অংশ প্রতিদিন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে থাকেন। তাই তাদের কাছে ব্র্যান্ডগুলো প্রতিনিয়ত কন্টেন্ট দেখিয়ে ব্র‍্যান্ড পরিচিতি বাড়াতে পারে।
  • সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলোতে ইউজাররা প্রোডাক্ট বা সার্ভিস সম্পর্কে পোস্ট বা কমেন্টের মাধ্যমে নিজেদের পছন্দ-অপছন্দ জানান। ব্র্যান্ডগুলো সে আলোচনায় সরাসরি অংশ নিতে পারে।
  • সোশ্যাল মিডিয়া অ্যানালিটিক্স ও মার্কেটিং টুলগুলো কাজে লাগিয়ে ব্র্যান্ডগুলো সঠিক টার্গেটিংয়ের মাধ্যমে বাছাই করা অডিয়েন্সের কাছে ঠিক সময়ে পৌঁছানোর সুযোগ পায়।
  • খুব অল্প সময়ে এবং অল্প খরছে অনেক মানুষের কাছে নিজের পণ্য বা সার্ভিস মার্কেটিং করা যায়। যা শুধু সোশ্যাল মিডিয়াতে সম্ভব।

পেশা হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

বর্তমান সময়ে পেশা হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সময় উপযোগী একটি সিদ্ধান্ত। অনেক বড় বড় ব্র্যান্ড তাদের সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং জন্য সোশ্যাল মিডিয়া এক্সপার্ট এমন অনেক লোক খুজে থাকেন।

আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে খুব ভাল ধারনা রাখেন তা হলে নিজের পণ্য বা সার্ভিস যেমন আপনার সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে অডিয়েন্সের কাছে ঠিক সময়ে পৌঁছানোর উপায় জানতে পারবেন ঠিক অন্য কোন ব্র্যান্ডের মার্কেটিং করেও আপনি প্রতি মাসে খুব ভাল একটা ইনকাম করতে পারবেন।

কোথায় শিখবেন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং?

এখন কোথায় এবং কি ভাবে শিখবেন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। আমাদের দেশে যে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যবস্থায় মার্কেটিং বিষয় রয়েছে সেখানে মার্কেটিং বিষয়ে ধারনা পাবেন কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শিখতে গেলে আপনাকে অনলাইন সিস্টেম এর সাহায্য নিতে হবে। শুধু সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ের ওপর কোনো প্রাতিষ্ঠানিক ডিগ্রি এখনো আমাদের দেশে দেয়া হয় না এবং চালু হয় নি।

তবে শিখার ইচ্ছা থাকলে আপনি দুটি উপায়ে শিখতে পারেন-

  • নিজে নিজে শেখা
  • প্রফেশনাল মানের কোন কোর্স বা ট্রেনিং করে শেখা

নিজে নিজে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শেখা

প্রযুক্তি আর ইন্টারনেটের কল্যাণে আপনি চাইলে নিজে নিজে ঘরে বসেও গুগল এবং ইউটিউবের মধ্যে শিখতে পারেন। গুগল সার্চ দিলে আপনি অনেক রিসোর্স পেয়ে যাবেন শেখার জন্য। ইউটিউবের ভিডিও মাধ্যমে আপনি শিখাতে পারবেন। অনেক সুন্দর ভিডিও আপনি পেয়ে যাবেন। তবে তবে এসব কন্টেন্টের বেশিরভাগ ইংরেজি মাধ্যমের। তাই আপনাকে ইংলিশ বুঝার মত দক্ষতা থাকতে হবে। আর ইউটিউব গুগুল থেকে ভালোভাবে কিছু শিখতে চাইলে আপনার উচিৎ হবে, কোন ভিডিও থেকে কিছু শিখলে সেটা দেখে দেখে আবার নিজে প্র্যাকটিস করা। অন্যথায় আপনি ভাল ভাবে শিখতে পারবেন না। তবে এই সব ফ্রি রিসোর্স থেকে নিজে নিজে শিখতে আপনি হয়ত সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে বেসিক একটা ধারনা পাবেন। কিন্তু কোন রিসোর্স পাবেন না।

কোর্স বা ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শেখা

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শিখার সবচেয়ে ভাল মাধ্যম হল অনলাইন কোর্স অথবা ট্রেনিং। বর্তমানে অনেক ভাল মানের অনলাইন কোর্স রয়েছে যেখানে আপনি রিসোর্স সহ একজন ভাল মানের ইনসট্রাক্টর এর গাইড লাইনে থেকে সময় বাঁচিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শিখতে পারবেন।

তবে সেক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে আপনি যে একাডেমী থেকে শিখবেন সেটা যেন ভাল মানের হয় এবং যিনি শেখাবেন ইনসট্রাক্টর সে যেন প্রফেশনাল হয়। কোর্সের কন্টেন্ট যেন কোয়ালিটি সম্পূর্ণ হয়। বর্তমানে বাংলাদেশে এমন অনেক ইন্সট্রাক্টর রয়েছে যাদের নিজেদের মার্কেটে কাজ করার কোন বাস্তব অভিজ্ঞতা নেই, শুধুমাত্র ট্রেনিং দেয়াই থাকে তাদের মূল উদ্দেশ্য। তাদের কাছে শিখতে গেলে আপনি কোনভাবেই বর্তমান সময়ে কাজে লাগে সেইসব পাওয়ারফুল টেকনিকগুলো শিখতে পারবেন না। তাই যার কাছ থেকে কোর্স করবেন সেই ব্যাপারে অবশ্যই খোঁজ খবর নিয়ে তারপর কোর্সে জয়েন করবেন।

আমাদের কাছে আপনি যদি জিজ্ঞাস করেন কোন কোর্স করব? তাহলে আমরা ২টা কোর্স আপনাকে করার জন্য সাজেশন করব।

১) ফেসবুক অ্যান্ড মেসেঞ্জার মার্কেটিং – এই কোর্সটি করবেন আপনার বিজনেস ফেসবুক নির্ভর হয়ে থাকে। কোর্সটিতে ফেসবুকের প্রতিটি পার্টের প্রতিটি সেটিংস এর সঠিক ব্যাবহার, ফ্রী এবং পেইড মার্কেটিং এর সকল হ্যাক, এমনকি আপনার ফেসবুক কমিউনিটি গ্রো করার জন্য যা যা করা দরকার এবং মেসেঞ্জার Automation এর সব কিছু স্টেপ-বাই-স্টেপ শিখানো হয়েছে। যা আপনাকে একজন এক্সপার্ট ফেসবুক মার্কেটার হিসাবে গড়ে তুলবে। 

২) কমপ্লিট ডিজিটাল মার্কেটিং (১ এর ভিতর ১৪) – এই ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্সটি আপনি কমপ্লিট করার মাধ্যমে আপনি মার্কেটিং-এ বলা যায় একদম সুপার এক্সপার্ট হতে পারবেন। কারণ মার্কেটিং এর প্রতিটি সেক্টর এই কোর্সে ভালোভাবে কভার করা হয়েছে। ইমেইল মার্কেটিং, ব্লগিং, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, ওয়েবসাইট তৈরি, ফেসবুক মার্কেটিং, ইউটিউবে ভিডিও মার্কেটিং, কুপন বিজনেস থেকে শুরু করে ১৪টির বেশি মার্কেটিং সেক্টরে এক্সপার্ট হয়ে যাবেন, যা আপনাকে প্রতি মাসে হাজার ডলার+ ইনকাম জেনারেটে সাহায্য করবে।

কোর্স বা ট্রেনিং করে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শেখার সুবিধা হলো এক জায়গায় প্রয়োজনীয় সব রিসোর্স পেয়ে যাবেন। তাছাড়া, কোনো সমস্যার সম্মুখীন হলে সরাসরি ইন্সট্রাক্টরের সহযোগিতা নিতে পারবেন। সাথে মিলবে কাজে লাগানোর মতো বাস্তব নির্দেশনা। আর আমাদের কোর্সের ইন্সট্রাক্টর Masuk Sarker Batista যেহেতু সরাসরি মার্কেটিং এর কাজে যুক্ত তাই এই মার্কেটিং দুনিয়ায় বড় কোন আপডেট আসলে সেইসব আপডেট সব সময় কোর্সে ফ্রীতে পাবেন। যার ফলে আপনি এই মার্কেটিং সেক্টরে অন্য সবার থেকে এগিয়ে থাকতে পারবেন, ইনশাআল্লাহ্‌। 

অনলাইন থেকে পেইড কোর্স করার সময় কিছু বিষয় অবশ্যই দেখে নিবেন-

  • কোর্সের মধ্যে কি কি শিখনো হচ্ছে কোর্সের Description ভাল ভাবে দেখে নিবেন
  • কোর্সের কন্টেন্ট যদি রেকর্ড ভিডিও হয় তাহলে ভিডিও এবং অডিও কোয়ালিটি ভাল কি না
  • কোর্সের এক্সেস কত দিনের জন্য দিবে। যেমন এম এসবি একাডেমী সকল কোর্সের এক্সেস লাইফ টাইমের জন্য দিয়ে থাকে তাদের স্টুডেন্ট এর জন্য
  • কোর্স বা ট্রেনিংয়ে ইন্সট্রাক্টরের কাছ থেকে কেমন সহযোগিতা পাওয়া যেতে পারে
  • কোর্স বা ট্রেনিংয়ের ইন্সট্রাক্টর সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং নিয়ে নিজে কতটুকু অভিজ্ঞ

অবশেষে একটি বিশেষ পরামর্শ

নিজে নিজে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং শেখা অনেক সময় সাপেক্ষ ব্যপার যার জন্য আপনার মধ্যে থাকতে হবে ইন্টারনেটে তথ্য খোঁজার পারদর্শিতা। কম সময়ে সঠিক গাইড লাইন, সাপোর্ট, এবং রিসোর্স পেতে ভাল মানের একাডেমী থেকে কোর্স করে ফেলুন। এর জন্য আপনাকে প্রথমে ইনভেস্ট করা লাগলেও পরবর্তীতে ভাল সুফল পাবেন।

Leave a Reply

error: