Blog

CPA Marketing কি? সিপিএ মার্কেটিং শিখে কিভাবে আয় করবেন?

CPA Marketing

প্রযুক্তির উন্নতি আমাদের জীবন ব্যবস্থাকে সহজ থেকে সহজতর করে তুলেছ। অনলাইন থেকে ইনকাম করার কথা কিছু বছর আগেও মানুষ চিন্তা করতে পারত না, কিন্তু এখন মানুষের ইনকামের সবচেয়ে বড় মাধ্যেম হয়ে দাঁড়িয়েছে অনলাইন। ব্যবসা বাণিজ্য থেকে শুরু করে পণ্যের মার্কেটিং পর্যন্ত সবকিছুই এখন ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নির্ভরশীল। বর্তমান ইন্টারনেটে বিশাল একটি জায়গা দখল করে আছে ডিজিটাল মার্কেটিং। এই ডিজিটাল মার্কেটিং এর রয়েছে অনেক শাখা প্রশাখা। তার মধ্যে সিপিএ (CPA) মার্কেটিং অন্যতম।

সিপিএ মার্কেটিং করে অনলাইন থেকে ইনকামের অসীম সম্ভাবনা থাকা সত্ত্বেও এই মার্কেটিং পদ্ধতি নিয়ে অনেক মানুষের অনেক ধরনের ভুল ধারনা রয়েছে। বেশিরভাগ মানুষই সঠিক তথ্য না জেনেই মন্তব্য করে থাকে এবং গাইডলাইন দিয়ে থাকে। যার ফলে অনেকেই এই গুরুত্বপূর্ণ CPA মার্কেটিং সম্পর্কে সঠিক গাইডলাইন পায় না। অথচ বর্তমান সময়ের সেরা ও সহজ ইনকাম উপায় হলো সিপিএ মার্কেটিং। CPA মার্কেটিং কি? এবং কিভাবে এখান থেকে ইনকাম করবেন সেই বিষয়ে আজকের এই আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে।

CPA মার্কেটিং কি?

CPA মার্কেটিং এর মুল রূপ হল Cost Per Action বা Cost Per Acquisition। CPA মার্কেটিং মার্কেটিং হলো ডিজিটাল মার্কেটিং এর এমন একটি শাখা, যার মাধ্যমে ইন্টারনেটের সহায়তায় অনলাইনে কোনো প্রোডাক্ট, বিজনেস বা সার্ভিস এর রেফারেন্স শেয়ারের মাধ্যমে ভার্চুয়াল মার্কেটিং ঘটিয়ে তার বিনিময়ে কমিশন লাভের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করা। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর একটি গুরুত্বপূর্ণ পার্ট হচ্ছে CPA মার্কেটিং। এখানে আপনাকে পে করা হবে কোন প্রোডাক্ট সেল করার বিনিময়ে নয়, নিদিষ্ট একটি কাজের বিনিময়ে। এগুলোকে সহজ ভাষায় একশন (Action) বলে। যেমন, রেজিষ্টেশন, ইমেইল সাবমিট, পিন সাবমিট অথবা অ্যাপ ডাউনলোড ইত্যাদি।

CPA মার্কেটিং এবং অ্যাফিলিয়েট কি একই জিনিস?

অনেকেই সিপিএ মার্কেটিং এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কে একই জিনিস মনে করেন, আসলে বিষয়টি এক নয়। সিপিএ মার্কেটিং এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর কাজের ধরন অনেকটা মিল থাকলেও দুইটার মধ্যে বেশ পার্থক্য রয়েছে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আপনি যে প্রোডাক্ট বা সার্ভিস এর অ্যাফিলিয়েট করবেন সেই অ্যাফিলিয়েট লিঙ্কে যদি ক্লিক করে কেউ যদি সেই প্রোডাক্ট বা সার্ভিসটি কিনে তাহলেই আপনি অ্যাফিলিয়েট কমিশন পাবেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আপনার দেয়া অ্যাফিলিয়েট লিঙ্ক থেকে পণ্য কিনতে হবে যদি না কিনে তাহলে কিন্তু আপনি অ্যাফিলিয়েট কমিশন পাবেন না এবং আপনার ইনকাম হবে না।

কিন্তু CPA মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে আপনাকে কোন পণ্য বা সার্ভিস বিক্রির কোন ঝামেলা নেই। আপনি যদি নিদিষ্ট সার্ভিস বা কাজটি করতে পারেন তাহলে আপনি টাকা পেয়ে যাবেন। আসলে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এবং সিপিএ মার্কেটিং এর কাজের ধরন একই হলেও কিছুটা পার্থক্য রয়েছে। নতুনদের জন্য অ্যাফিলিয়েট থেকে সিপিএ মার্কেটিং এর কাজ অনেক সহজ। কারণ এখানে বিক্রির কোন ঝামেলা নেই। নির্দিষ্ট কাজটি করলেই ইনকাম হবে।

CPA মার্কেটিং করতে কি কি প্রয়োজন ?

আপনি যদি সিপিএ মার্কেটিং এর মাধ্যমে অনলাইনে আয় করতে আগ্রহী হয়ে থাকেন, তবে সেক্ষেত্রে যেসব বিষয় আপনার প্রয়োজন হবে তাদের মধ্যে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো , সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান। সঠিক জ্ঞান ছাড়া আপনি কখনোই এ কাজ সফলতার সাথে করতে পারবেন না। সিপিএ মার্কেটিং কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটা অংশ। আর ডিজিটাল মার্কেটিং যেহেতু অনলাইনে বা ডিজিটাল যে প্ল্যাটফর্মগুলা রয়েছে সেখানে করা হয়, তাই সিপিএ মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে অনলাইন সম্পর্কে জানতে হবে। এছাড়াও কিছু হার্ডওয়ার এবং সফটওয়্যার আপনার থাকা লাগবে।

১) কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ

একটি সচল কম্পিউটার বা ল্যাপটপ সিপিএ মার্কেটিং এর জন্য প্রথমে লাগবে। কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ব্যতীত অন্য কোন ডিভাইস দিয়ে প্রফেশনাল ভাবে সিপিএ মার্কেটিং করা কেবল আকাশ কুসুম কল্পনা করা। সব কাজ মোবাইল দিয়ে হয় না।

২) দ্রুত গতির ইন্টারনেট কানেকশন

সিপিএ মার্কেটিং যেহেতু ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটা অংশ এবং এটি ডিজিটাল মাধ্যমে করতে হবে তাই  ইন্টারনেট সংযোগ লাগবেই। ইন্টারনেট  ছাড়া  আপনার ডিভাইসের কোনো মূল্য নেই এবং যেহেতু এটি একটি অনলাইন কার্যক্রম, সেক্ষেত্রে ইন্টারনেট ব্যতীত সিপিএ মার্কেটিং সম্ভব নয়।

৩) ই-মেইল অ্যাকাউন্ট

সিপিএ মার্কেটিং করতে চাইলে অবশ্যই নিজস্ব একটি অ্যাক্টিভ ই-মেইল অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। কারণ CPA মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে তখন ইমেইল অ্যাড্রেস লাগবে।

৪) নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ সাইট 

আপনার যদি ইন্টারনেট সংযুক্ত একটি কম্পিউটার ইতিমধ্যে থেকে থাকে, তবে এ পর্যায়ে আপনার প্রয়োজন হবে প্রফেশনাল মানের একটি সাইটের। যেখানে আপনি অফার লিংকসহ আপনার কাজের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা কনটেন্টগুলো পোস্ট করবেন। এটি হতে পারে কোন ইউটিউব চ্যানেল, সোশ্যাল মিডিয়া সাইট, ই-কমার্স সাইট এবং কোনো ব্লগ সাইট অথবা ওয়েবসাইট

৫) ভিজিটর বা ট্রাফিক

নিজস্ব সাইট তৈরি করার পর এ পর্যায়ে আপনাকে সাইটের ভিজিটর বাড়াতে হবে। সাইটে পর্যাপ্ত সংখ্যক ভিজিটর বা ট্রাফিক না থাকলে সিপিএ মার্কেটিং করা যাবে না আর করলেও খুব ভাল ফলাফল পাবেন না। সাইটে ভিজিটর বা ট্রাফিক বেশি থাকলে আপনি ফ্রি তে মার্কেটিং করে ভাল ফলাফল পাবেন। অন্যথায় আপনাকে কিছু টাকা ইনভেস্ট করে পেইড মার্কেটিং করতে হবে।

৬) সিপিএ নেটওয়ার্ক

সিপিএ মার্কেটিং করার জন্য সর্বশেষ গুরুত্বপূর্ণ যে উপাদান তা হলো, একটি CPA নেটওয়ার্ক বা প্লাটফর্ম যেখান থেকে CPA মার্কেটিং এর অফারসমূহ পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে সবসময় ভালো মানের CPA প্লাটফর্ম নির্বাচন করতে সচেতন হতে হবে।

marketing bangla blog

উপরের এই বিষয়গুলা ছাড়াও সিপিএ মার্কেটিং সম্পর্কে আপনার সঠিক জ্ঞান থাকতে হবে এবং কাজ করার মত ইচ্ছা শক্তি থাকতে হবে। নিয়ম মেনে রেগুলার কাজ করার মত ইচ্ছা মন মানুসিকতা থাকতে হবে। আর এই সকল দিক বিবেচনা করে আমাদের MSB Academy-তে পাবলিশ করা হয়েছে ব্র্যান্ড নিউ CPA Marketing success নামে একটি মাস্টারক্লাস বাংলা কোর্স। যেখানে CPA মার্কেটিং এর A to Z শিখানো হয়েছে। মার্কেটপ্লেসে অ্যাকাউন্ট খোলা থেকে শুরু করে ফ্রি এবং পেইড মার্কেটিং কৌশল এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (AI) এর সঠিক ব্যবহার শিখনো হয়েছে এই কোর্সের মধ্যে।

CPA মার্কেটিং এ কি ধরনের কাজ পাওয়া যায়?

CPA মার্কেটিং যেহেতু ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি অংশ তাই দিন দিন এর চাহিদা অনেক বাড়ছে। এবং সাথে কাজের পরিধি অনেক বাড়ছে। সিপিএ মার্কেটিং এ বিভিন্ন ধরনের অফার পাওয়া যায়। এর মধ্যে রয়েছে Pay per download, Pay per lead এবং Pay per sale

১) Pay per download

এ ধরনের অফার গুলো হয় সফটওয়্যার ডাউনলোড, গেমস ডাউনলোড ইত্যাদি। অর্থাৎ আপনি প্রতি ডাউনলোড এখানে টাকা পাবেন। ধরুন, কোন একটি সফটওয়্যার কোম্পানী অফার দিল যে, তাদের সফটওয়্যার ডাউনলোড করিয়ে দিতে পারলে প্রতি ডাউনলোডে ২ ডলার করে দেয়া হবে। এখন আপনি যদি একটি সফটওয়্যার ডাউনলোড করে দিতে পারেন তাহলে প্রতি ডাউনলোডে ২ ডলার করে পাবেন।

২) Pay per lead

এধরনের অফার গুলো হয় সাইন আপ, ইমেইল সাবমিট ইত্যাদি।

৩) Pay per sale

এধরনের অফারগুলো হয় সেল জাতীয় যেমন হেল্থ, ইনসিওরেন্স ইত্যাদি।

এছাড়া আরও বিভিন্ন অফার রয়েছে যেমন- সিপিএ মার্কেটিং এর নির্ধারিত কাজগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো বিভিন্ন কোম্পানির email submission করানো, application, software অথবা কোন game download করানো, form fill up করানো, form registration করানো, survey জমা দেওয়া, বিভিন্ন ওয়েবসাইটে sign up করানো, call offer করা ইত্যাদি।

কিভাবে CPA মার্কেটিং এ কাজ করবেন?

সিপিএ মার্কেটিং এ কাজ করতে হলে প্রথমে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের সিপিএম মার্কেটিং ওয়েবসাইটে অংশগ্রহণ করে কোন একটি প্রোগ্রামে অংশ নিতে হবে। এখানে অন্যান্য মার্কেটিং এর মত সিপিএ মার্কেটিং এর অফার গুলা প্রমোশন করার জন্য দুটি মার্কেটিং পদ্ধতি তে কাজ করতে পারেন একটি ফ্রি মার্কেটিং পদ্ধতি অন্যটি পেইড মার্কেটিং পদ্ধতি।

১) ফ্রি মার্কেটিং

ফ্রিতে CPA মার্কেটিং করতে হলে আপনার একটি ব্লগ ওয়েবসাইট থাকতে হবে এবং তার সাথে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটির থাকতে হবে। যদি ভিজিটর বেশি না থাকলে তাহলে কন্টেন্ট লিখে ভিজিটর বাড়াতে হবে। যেহেতু ফ্রি তে মার্কেটিং করছেন সেহেতু আপনাকে এমন কন্টেন্ট লিখতে হবে যেন বেশি বেশি ভিজিটর আপনার সাইট ভিজিট করে। তাহলে আপনার CPA অফার গুলা তাদের কাছে পৌঁছাবে। এর পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ একটিভ থাকতে হবে। যেমন ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার লিংকডিন, ইন্সট্রাগ্রাম এই সকল সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশি করে প্রচার করতে হবে। একটি কথা মাথায় রাখতে হবে সেটা হল ফ্রি মার্কেটিং এ আপনাকে একটু বেশি সময় দিতে হবে এবং বেশি পরিশ্রম করতে হবে।

২) পেইড মার্কেটিং

পেইড মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে কিছু ইনভেস্ট করতে হবে, কিছু টাকা খরচ করতে হবে তবে ফলাফল আপনি ফ্রি মার্কেটিং থেকে অনেক বেশি ভাল পাবেন। পেইড মার্কেটিং এর বিশেষ একটি সুবিধা হল ফ্রি মার্কেটিং থেকে এখানে আপনি লিড খুবই দ্রুত সংগ্রহ করতে পারবেন। ডিজিটাল মার্কেটিং এর যে মাধ্যম গুলা রয়েছে ফেসবুক, ইউটিউব, ইন্সট্রাগ্রাম এই সকল মাধ্যমে কিছু টাকা করে মার্কেটিং করলে অল্প সময়ে অনেক মানুষের কাছে পৌছানো যায়। আপনি যদি সঠিক উপায়ে মার্কেটিং করতে পারেন তাহলে আপনি মার্কেটিং এর পিছনে যে টাকা খরচ করবেন সেটা উঠে আসবে আপনার লাভ সহ।

সে ক্ষেত্রে আপনি চাইলে আমাদের All in One Digital Marketing Masterclass কোর্সটি করতে পারেন। এই কোর্সটি কমপ্লিট করলে ১৪+ রকমের প্রুভেন মার্কেটিং কৌশল জানতে পারবেন এবং সঠিকভাবে মার্কেটিং কিভাবে করবেন সেই বিষয়ে গাইডলাইন পাবেন।

কিভাবে CPA মার্কেটিং শুরু করবেন?

সিপিএ মার্কেটিং করার জন্য প্রথমে আপনাকে CPA Network রেজিস্টেশন করতে হবে। CPA মার্কেটিং এর এর অনেক ধরনের নেটওয়ার্ক রয়েছে এর মধ্যে CPAgrip, CPAlead বেশ জনপ্রিয়। গুগলে গিয়ে আপনি CPAgrip, CPAlead লিখলে তাদের ওয়েবসাইট লিংক পাবেন। সেখানে গিয়ে আপনাকে সকল ইনফরমেশন দিয়ে সুন্দর করে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। অ্যাকাউন্টটি ইমেইল ভেরিফাই করলে আপনি আপনার ড্যাশবোর্ড পেয়ে যাবেন। তারপর আপনি অফার পেইজে গিয়ে আপনার পছন্দ মত অফার নিয়ে কাজ শুরু করতে পারবেন।

অ্যাকাউন্ট তৈরি করার সময় আপনাকে একটি নিশ সিলেক্ট করতে হবে। আপনি যে নিশ নিয়ে কাজ করবেন বা যে নিশ সিলেক্ট করবেন। আপনার সামনে সেই অফারগুলি আসবে। এখন আপনি যে অফার নিয়ে কাজ করবেন সেটা করার আগে আপনি অবশ্যই অফার এর নিয়মগুলা ভালভাবে পড়ে নিবেন। কিভাবে আপনি সেই অফার Promote করতে পারবেন, কোন কিওয়ার্ডগুলা ব্যবহার করবেন এবং কোন ওয়ার্ড বা শব্দ ব্যবহার করা যাবে না সেই বিষয়ে কিন্তু শেখানে লেখা থাকবে এবং সেই নিয়ম মেনে আপনার কাজ করতে হবে।

কেন আপনি CPA মার্কেটিং করবেন এবং শিখবেন?

এখন আপনার মনে প্রশ্ন আসতে এত কিছু থাকতে কেন আপনি সিপিএ মার্কেটিং করবেন বা শিখবেন। আগেও বলেছি সিপিএ মার্কেটিং কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি অংশ। ডিজিটাল মার্কেটিং এর কিন্তু আরও অনেক শাখা রয়েছে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং আছে, ইউটিউব মার্কেটিং আছে, এমন আরও অনেক রয়েছে। অন্য সকল মার্কেটিং থেকে নতুনদের জন্য CPA মার্কেটিং অনেক সহজ। এখানে আগে থেকে অনেক বেশি অভিজ্ঞতা সম্পূর্ণ হতে হয় না। মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে মার্কেট বা Trend সম্পর্কে জানতে হয় না।

আপনি যদি নিয়মিতভাবে কাজ করেন তাহলে খুব অল্প সময়ে CPA থেকে আয় করা যায়। আর মজার বিষয় হল, এখানে আপনাকে কোন টার্গেট পূরণ করতে হবে না। কোন কিছু সেল করাতে হবে না। আপনি শুধু আপনার কাজটি কমপ্লিট করবেন। তাছাও এখানে পেমেন্ট নিয়ে কোন সমস্যা হয় না। আপনি Payoneer, WebMoney, Binance অথবা Perfect Money দিয়ে সহজে পেমেন্ট নিয়ে আসতে পারবেন।

কিভাবে শিখবেন CPA মার্কেটিং?

CPA মার্কেটিং কি? কিভাবে এটি কাজ করে, কেন এটি এত জনপ্রিয় এবং কেন আপনার CPA মার্কেটিং করা উচিৎ সব কিছু সম্পর্কে আমরা এত সময় জানলাম, এখন আপনাকে এত কিছু করতে হলে আগে সঠিক ভাবে CPA মার্কেটিং শিখতে হবে। কারণ শুধু বেসিক ধারনা নিয়ে এখন আর কোন মার্কেটপ্লেসে সফল হওয়া যায় না। সকল সেক্টরে এখন কম বেশি কম্পিটিশন রয়েছে। তাই এখানে টিকে থাকতে হলে এবং ইনকাম করতে হলে আগে আপনাকে CPA মার্কেটিং শিখতে হবে।

আর আপনাদের জন্য সুখবর হচ্ছে MSB Academy-টি কিন্তু CPA Marketing Success নামের একটি বেস্টসেলিং কোর্স রয়েছে। কোর্সটিতে বেসিক থেকে শুরু করে মার্কেটিং এর এডভান্স এবং একদম শুরু থেকে ইনকাম করা পর্যন্ত সব কিছু লাইভ প্রজেক্টের মাধ্যমে শিখানো হবে। কোর্সটিতে আপনি একবার জয়েন হলে পাবেন লাইফটাইম কোর্স এক্সেস + ফ্রি কোর্স আপডেট এবং অভিজ্ঞ মেন্টরের লাইফ টাইম সাপোর্ট যা আপনার কাজে আরও সুন্দর এবং সহজ করে দিবেন এবং আপনার ইনকাম বাড়িয়ে দিবে।

এই ব্লগটি যদি আপনার পড়া শেষ হয়ে থাকে তাহলে আর একটা মিনিট সময় নষ্ট না করে আপনি CPA Marketing কোর্সে ভর্তি হয়ে শিখা শুরু করে দিন। সত্যি যদি আপনার অনলাইন থেকে ইনকামের সৎ ইচ্ছা থাকে এই কোর্সে জয়েন করা হবে আপনার লাইফের অন্যতম একটি সেরা সিদ্ধান্ত।

Leave a Reply

error: Alert: Content selection is disabled!!